চিয়া বীজ

0
1718

চিয়া বীজ :

চিয়া বীজ ফাইবার ও ওমেগা-৩ ফ্যাট এবং অন্যান্য পুষ্টি উপাদানের ভাল উৎস। কেননা এই চিয়া বীজ উচ্চমাত্রায় ফাইবার, এন্টিঅক্সিডেন্ট ও অন্যান্য পরিশোষক পুষ্টি উপাদানে ভরপুর যা আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যকে অত্যন্ত পুষ্টিময় করে তোলে।

আমলা তে খুব কম পরিমাণ ক্যালরি এবং অনেক বেশি মাত্রায় ফাইবার আছে যা আমাদের স্থূলতা-মেদবৃদ্ধি,হৃদরোগ,ডায়াবেটিস ও কয়েক ধরণের ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে।

প্রতি ১ কাপ (১৫০ গ্রাম) Chia seeds ( চিয়া বীজ) তে – পুষ্টি উপাদান::

পুষ্টি উপাদান-প্রতি ১৫০ গ্রাম আমলকি
Calories/ক্যালরিঃ ৬৬ গ্রাম
Carbs/কার্বসঃ ১৫ গ্রাম
Protein/প্রোটিনঃ ১ গ্রাম
Potassium/পটাশিয়ামঃ ৬% 
Sugar/চিনিঃ ৪.২ গ্রাম
Fiber/ফাইবারঃ ৭ গ্রাম
Fat/ফ্যাটঃ >১ গ্রাম ( ১ গ্রামের কম)
এ ছাড়া অন্যান্য ভিটামিন সমূহঃ ভিটামিন বি৫ঃ ৯% ভিটামিন বি৬ঃ ৭% ভিটামিন সিঃ ৪৬% (প্রতিদিনের খাদ্য তুলনায়) কপারঃ ১২% ম্যাঙ্গানিজঃ ৯% 

স্বাস্থ্যকর উপকারী দিকসমূহঃ

  • চিয়া বীজে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ এন্টিঅক্সিডেন্ট পলিফেনলস এর উপস্থিতি থাকে।
  • চিয়া সীড কার্ডিওভাসকুলার  রোগ, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার এবং স্থূলতা জনিত উদ্দীপনা বা প্রদাহ জনিত ঝুঁকি কমায়।
  • চিয়া সীড ওভারি বা ডিম্বানুর ক্যান্সার, কোলন ক্যান্সার এবং প্যানক্রিয়াস বা অগ্নাশয়ের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।
  • চিয়া সীড রক্তের আলফা লিপোইক এসিড  (ALA) বৃদ্ধি করে। এটি ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যা আমাদের রক্তের উদ্দীপনা কমাতে সহযোগীতা করে। এই আলফা লিপোইক এসিডেে নিজস্ব ইনসুলিন ডায়াবেটিস টাইপ-২ এর ব্লাড সুগারের মাত্রা কমিয়ে দেয়।
  • চিয়া বীজ রক্তের আইকোস্যাপেন্টেইনোইক বা EPA  এর মাত্রা কমাতে সক্ষম। কেননা EPA হল এক প্রকার ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড যা আমাদের মস্তিষ্কের পুষ্টি সাধনে বহুল পরিচিত। খাদ্যতালিকা তে অধিক পরিমাণে EPA এর উপস্থিতি  Attention deficit Hyperactive রোগ, বাইপোলার জনিত সমস্যা এমনকি সিজোফ্রেনিয়া জাতীয় রোগ হতে পারে। অবশ্য এগুলো আলঝেইমার্স রোগ প্রতিরোধ করতে পারে।
  • চিয়া বীজ রক্তের শর্করা কমিয়ে দিতে সহায়তা করে। কিছু গবেষণায় এটা দেখা গেছে যে চিয়া বীজ খাবার পর তাৎক্ষণিক রক্তের শর্করা কমিয়ে দিতে সক্ষম। তাছাড়া এই বীজ আমাদের ক্ষুধা কমিয়ে দেয়।
  • চিয়া বীজ হৃদরোগের ঝুঁকির কমায়।
  • কিছু গবেষণায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, এটি প্রতিদিন ৩৭ গ্রাম  চিয়া বীজ টানা ১২  সপ্তাহ খেলে রক্তচাপ কমে এবং কয়েকপ্রকার রাসায়নিক প্রদাহ যেমন CRP বা সি রিএকটিভ শর্করা কমাতে সাহায্য করে।
  • চিয়া বীজ এমন একটি খাবার যাতে কম ক্যালরি এবং উচ্চমাত্রায় ফাইবার বিদ্যামান । তাই এটি খেলে আমাদের দীর্ঘক্ষণ পেট ভর্তি বলে মনে হয়। এটিতে যে ফাইবার আছে তা আমাদের ওজন হ্রাসে দারুণ সহায়তা করে। এছাড়াও প্রতি চামচ চিয়া বীজে ৫ গ্রাম ফাইবার, ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড এবং আলফা লিনোলিক এসিড বিদ্যমান যা আমাদের ওজন হ্রাস করাতে গুরুপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

কিভাবে চিয়া বীজ খাবেনঃ

  • চিয়া বীজকে আপনি বিভিন্ন ধরণের মিষ্টি জাতীয় খাবারের সাথে উৎকৃষ্ট  খাবার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। এই সুস্বাদু বীজ সালাদের অন্যতম উপাদান হিসেবে খবারের উপরে ছিটিয়ে ব্যবহার পারেন।
  • চিয়া বীজ সরাসরি কাঁচাও খাওয়া যায় কারণ এটা অত্যন্ত সুস্বাদু।
  • এই বীজ লেবুর শরবত,  দই বা অন্য যে কোন শরবতের সাথে সরাসরি ব্যবহার করতে পারবেন।
  •  আপনি চাইলে চিয়া বীজ পানি, লেবু ও মধুর সাথে মিশিয়ে দারুণ শরবত বা জুশ বানিয়ে খেতে পারবেন যা আপনার ওজন কমাতে দারুণ সহায়তা করবে।
Facebook Comments