পেঁপে

0
981

পেঁপে এমন একটি ফল যা সবুজ থাকলে সবজী হিসেবে খেতে পারি এবং এটি যখন  নরম ও ভিতরে কমলা রং ধারণ করে তখন খেতে দারুণ সুস্বাদু ও রসালো  লাগে। এটি অত্যন্ত মিষ্টি স্বাদের নরম যা মাখনের সাথে তুলনা করা হয়। পেঁপে কে “ফেরেস্তাদের ফল” বললেও অবাক হবার কিছু নাই। এটি অসংখ্য স্বাস্থ্য গুণ সম্পন্ন একটি ফল।

পেঁপে শুধুমাত্র সুমিষ্ট স্বাদ ও রৌদ্রজ্জ্বল ফল ই নয়, বরং এটি বিভিন্ন এন্টিঅক্সিডেন্ট যেমনঃ ক্যারটিন,ভিটামিন সি ও ফ্লেভোনোইডস; ভিটামিন বি,ফলেট,প্যান্টোথেনিক এসিড,খনিজ পদার্থ,পটাসিয়াম, কপার,ম্যাগনেসিয়াম এবং ফাইবার এর ভাল উৎস।

একটি ছোট পেঁপে(১৫২ গ্রাম) তে বিদ্যমান উপাদান সমূহঃ

– ক্যালরিঃ ৫৯
-কার্বোহাইড্রেটঃ ১৫ গ্রাম
-ফাইবারঃ ৩ গ্রাম
-প্রোটিনঃ ১ গ্রাম
-ভিটামিন সিঃ ১৫৭% (RDI)
-ভিটামিন এঃ ৩৩% (RDI)
-ফলেট (ভিটামিন বি৯)ঃ ১৪% (RDI)
-পটাসিয়ামঃ ১১% (RDI)
-অন্যান্য ভিটামিনের মধ্যে রয়েছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ভিটামিন বি১, বি৩, বি৫, ই ও কে।

[the_ad_placement id=”adsense-in-feed”]

স্বাস্থ্যকর উপকারি দিকঃ

✪পেঁপে বয়সজনিত ম্যাকুলার ক্ষয়রোধ করে। পেঁপের জ্যাক্সানথিন এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্ষতিকর বেগুনি রশ্নিকে ফিল্টার করে। এই ফলের অভ্যন্তরীণ উচ্চমাত্রার গুণ বয়সজনিত ম্যাকুলার ক্ষয়ের ঝুকি এবং অগ্রগতি রোধ করতে দেখা যায়।

✪গবেষণায় বলা হয় যে পেঁপের এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সারের ঝুকি কমায় এমনকি এর গতি কমিয়ে দেয়।

✪পেঁপে এন্টিঅক্সিডেন্ট, ফাইটোনিট্রিয়েন্টস ও ফ্ল্যাভোনয়েডস এর উৎস যা আপনার কোষের ফ্রি রেডিক্যাল ক্ষতি রোধ করে।কিছু গবেষণায় বলা হয়েছে যে পেঁপে খেলে কোলন ক্যান্সার ও প্রস্টেট ক্যান্সারের ঝুকি কমায়।

✪পেঁপে আমাদের চাপ কমাতে সাহায্য করে।এই আশ্চর্যজনক ফলটিতে ভিটামিন সি এর মত আরো কয়েকটি পুষ্টি গুণ সমৃদ্ধ যা আপনাকে চাপ ও চিন্তামুক্ত রাখতে পারে।

✪আর্থাইটিস রোগ কে দূর্বল করতে পারে এবং যাদের মধ্যে এটি আছে তাদের জীবনযাত্রার মান উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যেতে পারে।পেঁপে খাওয়া হাড়ের জন্য ভাল কেননা এতে এন্টি ইনফ্লেমেটরির পাশাপাশি ভিটামিন সি রযেছে যা বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্ত রাখে।

✪ফলে উপস্থিত পটাশিয়াম কিডনির স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। এটি কিডনিতে জমা হওয়া বিষাক্ত পদার্থসমূহ পরিষ্কার করে এবং রক্তে ইউরিক এসিড জমাট বাধা হ্রাস করে।পেঁপের বীজ ও কিডনির স্বাস্থ্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই ফলের ফ্লেভোনোইড কোষকে ক্ষয় হতে রক্ষা করে এবং কিডনির অকার্যকর হওয়ার হাত থেকে বাচায়।

✪পেঁপে ফল মিষ্টির জন্য বেশ পরিচিত। এটি ডায়াবেটিস বা যারা এর ঝুঁকি কমাতে চান তাদের জন্য দুর্দান্ত একটি ফল। এতে চিনি বা গ্লুকোজের মাত্রা কম থাকে তাই এটি অন্যান্য ফলের মত নয়। উচ্চমাত্রায় পুষ্টি ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সুবিধা আছে বিধায় এটি রক্তের শর্করা বা কোলেস্টেরল এর মাত্রা বজায় রাখে।

✪পেঁপেতে বিদ্যামান পাইবার,পটাসিয়াম ও ভিটামিন হৃদরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।পটাসিয়াম গ্রহনের মাত্রা বেশি এবং সোডিয়ামের গ্রহণের মাত্রা কমানো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা খাদ্যাভাস পরিবর্তনের মাধ্যমে কোন ব্যক্তি তাদের কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুকি কমাতে পারে।

✪ পেঁপে বার্ধক্য প্রতিরোধী এবং ত্বকের জন্য দারুণ কাজ করে।ত্বক দেহের বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ যা দেহের সমস্ত কার্যক্রমের প্রতিফলন ঘটায়।উজ্জ্বল ও স্বাস্থময় ত্বকের জন্য প্রতিদিন পেঁপে দৈনিক খাওয়া যেতে পারে।এটি ভিটামিন এ,ই,সি সমৃদ্ধ যা এন্টিঅক্সিডেন্টের বিশাল ডোজ হতে পারে। এটি ত্বককে উজ্জ্বল করে,বলি দূর করে,চামড়া কুচকানো রোধ করে এবং বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করে।এছাড়া এটি আলফা-হাইড্রোক্সি এসিড এর একটি প্রাকৃতিক উৎস। AHA মৃত কোষের স্তর দূর করে কোষের টিস্যুগুলোকে পুনর্জীবিত করে দৃঢ় করে তোলে।