ক্যাপসিকাম মরিচ

0
1212

ক্যাপসিকাম বা সিমলা মরিচ nightshade family এর অন্তর্ভূক্ত এক প্রকার সবজী জাতীয় ফল।

এই সবজী টি অত্যন্ত কম ক্যালরি থাকার পাশাপাশি অত্যাধিক ভিটামিন সি ও অন্যান্য এন্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় স্বাস্থ্যকর খাদ্য তালিকায় এটি আলাদা মাত্রা যোগ করেছে। ক্যাপসিকাম বিভিন্ন রঙের হয়ে থাকে যেমনঃ লাল,হলুদ,কমলা এবং সবুজ রং। ক্যাপসিকাম রান্নার পাশাপাশি সালাদ হিসিবেও খাওয়া যায়।

৩.৫ ওন্সেস (১০০ গ্রামস) ক্যাপসিকাম বা সিমলা মরিচ এ পুষ্টি গুনাগুন অন্তর্ভুক্ত আছে :

পুষ্টি উপাদান-প্রতি ১০০ গ্রাম
Calories/ক্যালরিঃ ৩১ গ্রাম
Water/পানিঃ ৯২%
Protein/প্রোটিনঃ ১ গ্রাম
Carbs/কার্বসঃ ৬ গ্রাম
Sugar/চিনিঃ ৪.২ গ্রাম
Fiber/ফাইবারঃ ২.১ গ্রাম
Fat/ফ্যাটঃ ০.৩ গ্রাম
এ ছাড়া অন্যান্য ভিটামিন সমূহঃ এ, ই, সি, বি৬, কে১ ও পটাশিয়াম

 

স্বাস্থ্যগত উপকারী দিকসমূহঃ

  • শাকের ও কাঁচা ক্যাপসিকাম একসাথে খেলে দেহে লৌহ জাতীয় উপাদান বাড়ায় ফলে রক্তশূন্যতা ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।
  • লাল সিমলা মরিচে উচ্চমাত্রায় ভিটামিন এ থাকায় এটি দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে বিশেষ করে রাতের বেলা। এছাড়া এটিতে রয়েছে ক্যারোটেনয়েড যা আমরা লুটেইন নামে চিনে থাকি। এটি চোখের  ম্যাকুলার ক্ষয় রোধ করে।
  • ক্যাপসিকামের রয়েছে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করার কার্যকরী ক্ষমতা। কেননা এটি  এন্টিঅক্সিডেন্ট ও এন্টিইনফ্লোমেটোরি গুণসম্পন্ন হওয়ায় ক্যান্সার প্রতিরোধী হিসেবে কাজ করে। এছাড়াও, সিমলা মরিচে সালফার যৌগ উপাদান ও বিভিন্ন এনজাইম থাকায় তা গ্যাস্ট্রিক জাতীয় ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। তাছাড়া প্রোস্টেড,মূত্রাশয়,  জরায়ু ও অগ্নাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধে এতে বিদ্যামান ক্যারোটিনয়েড ও লাইকোপেন অত্যন্ত কার্যকরী হিসেবে প্রমাণিত।
  • গবেষণায় দেখা যায় যে ক্যাপসিকাম করোনারী হৃদরোধ প্রতিরোধে খুব ভাল কাজ করে।  লাল ক্যাপসিকামে উচ্চমাত্রায় লাইকোপেন রয়েছে যা হার্টের জন্য খুব দরকারী ও স্বাস্থ্যকর। পাশাপাশি সবুজ ক্যাপসিকামও নিম্ন কোলেস্টেরলযুক্ত ফাইবারের একটি অন্যতম উৎস। এছাড়া আমরা জানি যে, হোমোসিস্টেনিন বাড়লে হৃদরোগের ঝঁকির মাত্রা বাড়ায়।
  • ক্যাপসিকাম চোখের জন্যও খুব ভাল। আপনার খাদ্য তালিকায় ক্যাপসিকাম থাকলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধকতার ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দিতে পারে। লাল সিমলা মরিচে ভিটামিন এ বেশি থাকায় এটি চোখের দৃষ্টি-শক্তি বিশেষ করে রাত্রের দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধিতে যথেষ্ট সহায়তা করে। এতে অধিক মাত্রায় লুটেইন নামে ক্যারিটোনয়েড আছে বলে এটি চোখের  ম্যাকুলার ক্ষয় রোধে সহায়তা করে।
  • লাল ক্যাপসিকাম আমাদের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় ভিটামিন সি এর ৩০০%  চাহিদা পূরণ করতে পারে। কেননা সঠিক মাত্রায় আয়রন শোষনের জন্য ভিটামিন সি অত্যন্ত জরুরি। তাই যারা লৌহের অভাবে ভূগছেন তাদের লাল ক্যাপসিকাম খাওয়া অত্যন্ত জরুরি।
  •  চুল ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্যাপসিকাম একটি অতি প্রয়োজনীয় খাদ্য। এছাড়া এটি আপনার ত্বক কে উজ্জ্বল ও স্বাস্থ্য ময় করে তোলে।
Facebook Comments